স্থায়ীভাবে মুখে দুর্গন্ধ দূর করার উপায়

সুপ্রিয় দর্শকবৃন্দ আজকে আমি আপনাদের জানাবো মুখের দুর্গন্ধ কেন হয়, স্থায়ীভাবে তা দূর করার উপায়। আপনাদের মধ্যে অনেকেই মুখের দুর্গন্ধের শিকার হয়ে থাকেন। মানে আপনার মুখ থাকে খুব বাজে একটি গন্ধ বের হয়। আর এই অবস্থায় আপনি যখন অন্য কারো সঙ্গে কথা বলেন তার ব্যবহার দেখে বুঝাই যায় যে তিনি আপনার সঙ্গে কথা বলতে অস্বস্তি বোধ করতেছে।

স্থায়ীভাবে মুখে দুর্গন্ধ দূর করার উপায়

এছাড়াও আপনার কাছের কোন মানুষ যেমন স্বামী, স্ত্রী, বন্ধু, বান্ধবী কিংবা কাছের কোন মানুষ যারা আপনাকে এড়িয়ে যেতে শুরু করে। এর ফলে আপনার নিজের আত্মবিশ্বাস কমে যায় অনেকাংশে। আবার কিছু কিছু লোকেরা হয়তো বা আপনার পেছনে আপনার মুখের দুর্গন্ধ নিয়ে কথা বলে থাকে।

মুখের দুর্গন্ধের কারণ কী?

মুখের দুর্গন্ধ অত্যন্ত বিরক্তিকর ও  বিব্রতকর একটি সমস্যা। সচরাচর যার সমস্যা তিনি বুঝতে পারেন না তার আশেপাশের মানুষেরাই বুঝতে পারেন যে তার মুখ থেকে দুর্গন্ধ ছড়াচ্ছে। তবে এই সমস্যাটি অনেক কারণে হতে পারে।

প্রথমত কেউ যদি সময় মতো সঠিক নিয়মে দাঁত পরিষ্কার না করে থাকে এর ফলে মুখের দুর্গন্ধ হতে পারে। দ্বিতীয়ত অনেক সময় দেখা যায় দাঁতের ফাঁকে খাবার আটকে যায় বা যা কোনভাবে বের হয় না এর ফলে তা পচে মুখে দুর্গন্ধ হতে পারে।

তৃতীয়ত শিশুদের ক্ষেত্রে যদি মুখের দুর্গন্ধ হয় তাহলে প্রথমে আমাদের খেয়াল করতে হবে তাদের নাকের মধ্যে কোন খাবার আটকে আছে কিনা। অনেক ক্ষেত্রে শিশুদের দেখা যায় তাদের নাকের মধ্যে খাবার আটকে সেটা পচে গিয়ে মুখের দুর্গন্ধ হয়।

চতুর্থ যদি দাঁতের মধ্যে প্রদাহ বা জিভের মধ্যে প্রদাহের কারণেও মুখের দুর্গন্ধ হয়ে থাকে। চতুর্থ যদি কারো মুখ সিক্ত বা মুখে লালা কমে যায় বা মুখ শুকিয়ে যায় এটি একটি কারণ মুখের দুর্গন্ধ হওয়ার। পঞ্চম যদি কারো একুয়েট লাঞ্চ ইনফেকশন বা নিউমোনিয়া হয় এর ফলেও মুখের দুর্গন্ধ হতে পারে।

ষষ্ঠ যারা ওজন কমাতে গিয়ে কিটো ডায়েট অনুসরণ করে এক্ষেত্রে লোকার্বোহাইড্রেট তা খুব সামান্য কার্বোহাইড্রেট গ্রহণের কারণে তার শরীরে খুব বেশি পরিমাণে কিটল উৎপাদন হবে ফ্যাট ভেঙে দিয়ে। সে কি তল উৎপাদনের কারণ ও মুখে দুর্গন্ধ হয়ে থাকে।

সপ্তম এলার্জি জনিত সমস্যার কারণে যদি কেউ এন্টি হিস্টামিন জাতীয় ওষুধ সেবন করেন আবার কারো যদি শারীরিক সমস্যার কারণে ডায়গনস্টিক জনিত ওষুধ সেবন করেন নিয়মিত এটি সেবনের কারণে মানুষের মুখে যে স্লাই বা লালা এর পরিমাণ কমে যেতে পারে এর ফলে মুখ শুকিয়ে গিয়ে মুখে দুর্গন্ধ হতে পারে।

অষ্টম কারণ যদি কেউ ভিটামিন সেবন করে খুব বেশি পরিমাণে নিয়মিত এটিও হতে পারে মুখের দুর্গন্ধ হওয়ার একটি বিশেষ কারণ। নবম কারণ মুখে দুর্গন্ধ হয় যদি কেউ অ্যালকোহল জাতীয় কিছু পান করে বা অ্যালকোহল বিডি সিগারেট ও ধূমপানের ফলেও মুখে দুর্গন্ধ হয় এটি একটি বিশেষ কারণ মুখে দুর্গন্ধ হওয়ার।

দশম কারণ মুখে দুর্গন্ধ হয় কাঁচা পেঁয়াজ কাঁচা রসুন কফি এসব কিছু খাওয়ার পর ফলেও মুখের দুর্গন্ধ ছড়াতে পারে।

মুখের দুর্গন্ধ নিজে কীভাবে দূর করব?

আমরা যতই দামি আর ভালো কাপর পড়ে থাকি না কেন কিন্তু কথা বলার সময় যদি মুখ থেকে দুর্গন্ধ আসে তাহলে আপনার সেই ভালো ব্যক্তিত্বকে মিনিটের মধ্যে বরবাদ করে দিতে পারে। আমরা যদি মুখের দুর্গন্ধ নিজেই দূর করতে চাই তাহলে প্রথমে আমাদের খুব ভালোভাবে প্রায় দুই মিনিট সময় ধরে আমাদের দাঁত, জিহ্বা দিনে দুইবার পরিষ্কার করতে হবে।

আমাদের দাঁতের দুর্গন্ধ দূর করার আরেকটি বিশেষ উপায় হলো আমাদের দাঁতের ফাঁকে খাবার জমে থাকা খাবার বের করতে হবে এটি সুতা বা কাঠি ব্যবহার করেও আমরা করতে পারি। দুই দাঁতের মাঝখানে জমে থাকা খাবার বের করে আমরা দাঁতের দুর্গন্ধ দূর করতে পারি নিজেরাই। নিয়মিত পর্যাপ্ত পরিমাণে পানি পান আমি করার মাধ্যমেও আমরা দাঁতের দুর্গন্ধ নিজেরাই দূর করতে পারি।

আর কিছু খাবার খাওয়ার পর মুখে দুর্গন্ধ হয় যদি আমরা কাঁচা পেঁয়াজ রসুন খেয়ে থাকি তাহলে অবশ্যই তার কিছুক্ষণ পরে আবার ব্রাশ করে নেব এভাবে আমরা মুখে দুর্গন্ধ দূর করতে পারি নিজেরাই। খালি পেটে বেশিক্ষণ থাকলে মুখের দুর্গন্ধ চলে আসে। তাই কিছুক্ষণ পর পর হালকা কিছু খাওয়া যার ফলে মুখে দুর্গন্ধ দূর হবে।

এবার ঘরোয়া কিছু উপায় এর মাধ্যমে আমরা মুখের দুর্গন্ধ নিজেরাই দূর করতে পারি। বেশ কিছু গবেষণায় দেখা গেছে লেবুর রস নিয়মিত পানের ফলে মুখে দুর্গন্ধ দূর হয়। লেবুর ভেতরে থাকা এসিডিক কনটেন্ট মুখের মধ্যে বাসা বেধে থাকা জীবানুদের মেরে ফলে খারাপ গন্ধের প্রকোপ মুখ থাকে একেবারেই কমে যায়।

আপনি কি করতে পারেন প্রথমে ২ টেবিল চামচ লেবুর রস নিয়ে এক গ্লাস পানির সঙ্গে মিশিয়ে পান করতে পারেন আবার ভালোভাবে কুলি কুচি করেও ফেলতে পারেন। এটি একটি কার্যকরী উপায় মুখের দুর্গন্ধ নিজেই দূর করার। এরপর হল মৌরি এর মধ্যে রয়েছে এন্টি ব্যাকটেরিয়াল প্রপারটিজ যা মুখের কবরে তৈরি হওয়া ব্যাকটেরিয়াকে ধ্বংস করে।

মুখের দুর্গন্ধ তৈরি হবে সুগন্ধে। এরপর রয়েছে লবঙ্গ মুখে নিয়ে চুষলে ও মুখের দুর্গন্ধ দূর হবে অনেকাংশে। তারপর হল এলাচ এলাচ মুখে রেখে দিন এর ফলে মুখে দুর্গন্ধ আর আসবে না। এই কিছু সহজ উপায় আপনি নিজে করতে পারেন যার মাধ্যমে আপনার মুখের দুর্গন্ধ দূর হবে।


স্থায়ীভাবে মুখের দুর্গন্ধ দূর করার উপায়

স্থায়ীভাবে মুখে দুর্গন্ধ দূর করতে হলে আমাদের কিছু ভালো অভ্যাস করে তুলতে হবে। যেমন আমরা রাতে ঘুমানোর পূর্বে ও সকালে নাস্তার পর অবশ্যই খুব ভালোভাবে দাঁত ব্রাস ও জিহ্বা পরিষ্কার করতে হবে এর ফলে মুখের দুর্গন্ধ স্থায়ী ভাবে দূর হবে। মুখে দুর্গন্ধ স্থায়ীভাবে দূর করতে হলে আমাদের খাদ্য বেশ কিছু পরিবর্তন করতে হবে। যেসব খাবার খেলে আমাদের মুখে দুর্গন্ধ হয় তা একেবারে পরিহার করতে হবে। 

পর্যাপ্ত পরিমান পানি পান করে আমরা মুখে দুর্গন্ধ দূর করতে পারি খুব ভালোভাবে। মুখে দুর্গন্ধ দূর করতে আমরা দুই দাঁতের মাঝখানে জমে থাকা খাদ্য বের করে মুখের দুর্গন্ধ দূর করতে পারি। যারা ক্যান্সারের রোগী তাদের যখন রেডিয়েশন থেরাপি দেওয়া হয় তখন তাদের মুখ শুকিয়ে যায় ফলের মুখে দুর্গন্ধ হয়। তা দূর করতে হলে অবশ্যই আমাদের বিশেষজ্ঞের সঙ্গে কথা বলা উচিত। আবার অ্যালকোহল বা ধূমপান বন্ধ করেও আমরা মুখের দুর্গন্ধ দূর করতে পারি স্থায়ীভাবে।
‌ 

মুখের দুর্গন্ধ দূর করার টুথপেস্ট

আমরা সাধারণত বাজারে গিয়ে টুথপেস্ট সেটা দিয়ে ব্যবহার শুরু করি। বাজারে বিভিন্ন ধরনের টুথপেস্ট এর মধ্যে রয়েছে বিভিন্ন ধরনের উপকারিতা। কিছু কিছু টুথপেস্ট আছে যা মারির প্রদাহ রোধ করে। আবার কিছু কিছু টুথপেস্ট আছে যা দাঁতকে সাদা করে। আবার কিছু টুথপেস্ট  আছে যা দাঁতের ক্ষয় রোধ করে।

আবার কিছু টুথপেস্ট আছে যা মুখে দুর্গন্ধ দূর করতে সাহায্য করে। এক্ষেত্রে আমরা কোন টুথপেস্ট নির্বাচন করব তা অবশ্যই একজন ডেন্টিস এর পরামর্শ নিতে হবে আমাদের সমস্যা অনুযায়ী। তাহলে আমরা দাঁতের দুর্গন্ধ দূর করার জন্য কোন টুথপেস্ট ব্যবহার করব তা অবশ্যই একজন ডেন্টিস এর পরামর্শ নিয়ে ব্যবহার করব।

মুখের দুর্গন্ধ দূর করার স্প্রে নাম

মুখের দুর্গন্ধ দূর করতে স্প্রে একটি তাৎক্ষণিক সমাধান।
  • কোলগেট ভ্যাটশক্তি মাউথ প্রোটেক স্প্রে।
  • স্প্রিমেন্ট মাউথ স্প্রে।
  • জিও ফ্রেশনার মাউথ স্প্রে।
  • স্লিইং ফ্রেশ ব্রেথ মাউথ স্প্রে।
  • লিস্টেরিন ফ্রেশ বার্ট পকেট।
  • ক্লোসেস ওরাল ব্রেথ স্প্রে।
  • অল ডে ড্রাই মাউথ স্প্রে।

মুখের দুর্গন্ধ দূর করার মাউথ ওয়াশ

সুন্দর দাঁত ও সুস্থ মারির জন্য আমরা অনেকেই মাউথ ওয়াশ ব্যবহার করি। কিন্তু আমরা অনেকেই জানিনা কখন কিভাবে কতটুকু পরিমান আমাদের ব্যবহার করতে হবে। কিংবা দীর্ঘ সময় মাউথওয়াশ ব্যবহারের ফলে কি কি সমস্যা দেখা দিতে পারে। সাধারণত খাবার জমে দাঁতে প্লাগ কিংবা পাথর না হয় এজন্য আমরা মাউথ ওয়াশ ব্যবহার করব।

এছাড়াও দাঁতের খাবার জমে দাঁতের গর্ত কিংবা ক্ষয় রোধে মাউথ ওয়াশ ব্যবহার করা জরুরী। এছাড়াও আমাদের তালু কিংবা গলায় যদি কোন ইনফেকশন থাকে তা দূর করতে মাউথওয়াশ ব্যবহার করা অত্যন্ত জরুরী। 

বাজারে অনেক ধরনের মাউথ ওয়াশ পাওয়া যায় কিছু মাউথওয়াশ আছে যা সমপরিমাণে পানিও সমপরিমাণে মাউথওয়াশ দিয়ে মিশিয়ে তা মুখে ৩০ সেকেন্ড ধরে রেখে কুলিকুচি করতে হয় এর ফলে মুখের দুর্গন্ধ দূর হয় অনেকাংশে। আবার কিছু মাউথ ওয়াশ  আছে যা পানি ছাড়াই ব্যবহার করতে হয়। মাউথওয়াশ ব্যবহারের পর আধাঘন্টা আমরা অন্য কোন খাবার বা কোন কিছু পান করব না যা আমাদের মুখের ব্যাকটেরিয়া ধ্বংস করতে সাহায্য করবে।

মুখের দুর্গন্ধ দূর করার জন্য কিছু মাউথ ওয়াশ এর নাম

  • অরোডিন মাউথ ওয়াশ।
  • ওড়িজা মাউথ ওয়াশ।
  • মাউথ কেয়ার মাউথ ওয়াশ।
  • অরোস্টার প্লাস মাউথ ওয়াশ।
  • ভায়োডিন।
  • লিস্টেরিন মাউথ ওয়াশ।

মুখের দুর্গন্ধ দূর করার হোমিও ঔষধের নাম

মুখের দুর্গন্ধ দূর করতে হোমিও কিছু ওষুধের নাম

  • ওরাম মেটালিকাম মহিলাদের জন্য।
  • অ্যাসিড নাইটি কাম ২০০। এটি সকল বয়সী মানুষের জন্য প্রযোজ্য মুখে দুর্গন্ধ দূর করতে।
  • মার্স সলস ২০০ সি এইজ।
  • কার্ভো ভেইজ ৩০ সি এইজ।
  • এসিড কার্বলিক ৩০ সি এইজ।

এসব হোমিওপ্যাথি ওষুধ মুখের দুর্গন্ধ দূর করতে সাহায্য করে স্থায়ীভাবে। তবে শুধু ওষুধ সেবন করলেই হবে না নিয়মিত দুবার ব্রাশ অবশ্যই করতে হবে।

 মুখের দুর্গন্ধ দূর করার ঔষধের নাম

  • সিরাপ কারমিনা।
  • ক্যাপসুল সেকলো।
মুখে দুর্গন্ধ দূর করতে এসব ওষুধ সেবন করতে পারেন তবে যদি সমস্যা বেশি হয় তাহলে অবশ্যই একজন ডেন্টিস এর সঙ্গে পরামর্শ করবেন।

মুখের দুর্গন্ধ দূর করার জন্য কোন ডাক্তার দেখাতে হবে

আমরা সবাই জানি, মুখের দুর্গন্ধ একটি অস্বস্তিকর অবস্থা প্রতিটি মানুষের জন্য। আর মুখের দুর্গন্ধ দূর করতে পারি হলে অবশ্যই আমাদের একজন দন্ত বিশেষজ্ঞ বা ডেন্টিস এর কাছে যেতে হবে। ডেন্টিস এর পরামর্শ অনুযায়ী চলতে হবে এবং নিয়মকানুন মেনে চলতে হবে যার ফলে আমাদের মুখের দুর্গন্ধ দূর হবে এবং এটা নিয়ে কোন দুশ্চিন্তাও হবে না।

পরিশেষে বলা যায় যে দাঁতের প্রতি যত্নবান ও সচেতনতা বৃদ্ধির মাধ্যমে আমরা মুখের দুর্গন্ধ দূর করতে পারি। মুখের দুর্গন্ধ দূর করতে হলে আমাদের অবশ্যই বিশেষ কিছু খাদ্যভ্যাস গড়ে তুলতে হবে যা আমাদের দাঁতের জন্য উপকারী। নিয়মিত দুবার ব্রাশ পর্যাপ্ত পরিমাণে পানি পান করেও আমরা মুখে দুর্গন্ধ দূর করতে পারি চিরতরে।

Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url