মুখের ব্রণ দ্রুত দূর করার ১০টি কার্যকরী সেরা উপায়

আমাদের মুখের যখন ব্রণ বের হয়, তখন রাতারাতি মুখের ব্রণ দূর করার কৌশল ও এক রাতে মুখের ব্রণ দূর করার উপায় কি? এই নিয়ে আমরা চিন্তা ভাবনা শুরু করি।

আচ্ছালামু আলাইকুম প্রিয় দর্শক - দেশি ব্লগর পক্ষ থেকে আপনাকে স্বাগতম। আজকে আমি আপনাদের মাঝে মুখের ব্রণ দ্রুত দূর করার ১০টি কার্যকরী সেরা উপায় নিয়ে আলোচনা করব।

মুখের ব্রণ দ্রুত দূর করার ১০টি কার্যকরী সেরা উপায় সম্পর্কে আরো জানতে গুগলে সার্চ করতে পারেন অথবা আমাদের ওয়েব সাইটে অন্যান্য পোস্টগুলো পড়তে পারেন। তো চলুন আমাদের আজকের মূল বিষয়বস্তুগুলো এক নজরে পেজ সূচিপত্রতে দেখে নেয়া যাকঃ

সুপ্রিয় দর্শকবৃন্দ, আজকে আমরা জানবো মুখের ব্রণ দূর করার জন্য কার্যকরী কিছু উপায় যার মাধ্যমে মুখের ব্রণ খুব তাড়াতাড়ি সেরে যাবে এবং মুখে কোন দাগ হবে না।

মুখের ব্রণ দ্রুত দূর করার ১০টি কার্যকরী সেরা উপায়

মুখে ব্রণ একটি অস্বস্তিকর ব্যাপার সবার জন্যই তাই না। তবে তার থেকে সবচেয়ে বেশি অস্বস্তি হয় মুখের ব্রণ থেকে মুখের দাগ ও গর্ত হবে নাকি এই সম্পর্কে চিন্তা করে। ব্রণ সাধারণত বেশি হয়ে থাকে কম বয়সী ছেলে মেয়েদের বয়সন্ধিকালের সময়। তবে এখন ব্রণ কমবেশি সবারই হচ্ছে।


ব্রণ হওয়ার কারণ

ব্রণ হওয়ার অনেক কারণ রয়েছে তবে বিশেষ কিছু কারণ নিম্নে উল্লেখ করা হলো:
  • ব্রণ হওয়ার প্রথম কারণ হলো হরমোনের সমস্যা।
  • ব্রণ হওয়ার আরেকটি বিশেষ কারণ হলো মানসিক টেনশন। এর ফলে ব্রণ হয়ে থাকে।
  • ব্রণ হওয়ার আরেকটি কারণ বায়ু দূষণ। বায়ুতে থাকা ধুলো ও ধোয়ার কারণে ব্রণ হয়ে থাকে। ভালো করে মুখ না পরিষ্কার করার কারণেও ব্রণ হয়ে থাকে। ঘুম কম হওয়ার কারণেও মুখে ব্রণ হয়ে থাকে।
  • পায়খানা প্রসাব পরিষ্কারভাবে না হওয়ার ফলেও মুখে ব্রণ হয়ে থাকে।অতিরিক্ত তৈলাক্ত খাবার খাওয়ার ফলেও মুখে ব্রণ হয়ে থাকে।

রাতারাতি মুখের ব্রণ দূর করার কৌশল

আমরা যতই বলি না কেন যে মুখের ব্রণ রাতারাতি দূর করা সম্ভব। আসলে এটি বাস্তব নয়। তবে কিছু প্রোডাক্ট ব্যবহারের মাধ্যমে দুই অথবা তিন দিনের মধ্যে ব্রণ কমে যেতে পারে। যেমন:

Lion pair medicated acne care cream, অনেক বড় ব্যথাযুক্ত ব্রণে এই ক্রিমটি ব্যবহারের পর তা মাত্র এক ও দুই রাতের মধ্যে ব্রণ শুকিয়ে ছোট করে ফেলতে দারুন কাজ করে এবং সেই সাথে মুখে  ব্রণ থেকে হওয়া দাগ প্রতিরোধ করে। এই ক্রিমের তেমন কোন ক্ষতিকর দিক নেই। তবে কারো কারো ক্ষেত্রে এলার্জি সমস্যা  হতে পারে।

এক রাতে মুখের ব্রণ দূর করার উপায়

ব্রণ এক রাতে দূর করা সম্ভব হয় না। তবে আমরা একটা কাজ করতে পারি যার মাধ্যমে আমাদের ব্রণ এক হতে দুই রাতের মধ্যে শুকিয়ে যাবে। যেটা সম্পূর্ণভাবে প্রাকৃতিক। এতে কোন ক্ষতিকারক প্রভাবও নেই।

ফলে ত্বকের উপর কোন ক্ষতিকর প্রভাব ফেলবে না। জায়ফল ও চন্দন এই দুটি উপাদান খুব ভালোভাবে গুঁড়ো করে একটি কৌটার মধ্যে রেখে দিতে পারি। এরপর এটি পানি দিয়ে মিশ্রণ তৈরি করে শুধু মুখে ব্রণের জায়গায় দিনে ৪ থেকে ৫ বার মুখে লাগিয়ে রাখতে পারি। এরকম দুই দিন লাগালে আমাদের ব্রণ সম্পূর্ণভাবে শুকিয়ে যাবে। তবে মনে রাখতে হবে ব্রণে হাত দিয়ে খোঁচানো যাবে না এর ফলে দাগ হতে পারে।


গালে ব্রণ দূর করার উপায়

গালে ব্রণ দূর করার জন্য প্রথমে আমাদের অবশ্যই সচেতন হতে হবে। যদি কারো সন্তানের হালকা বয়সে ব্রণ উঠে তাহলে সর্বপ্রথম আমাদের একজন ত্বকের বিশেষজ্ঞ কাছে যেতে হবে এবং তার উপদেশ অনুযায়ী চলতে হবে এর ফলে গালের ব্রণ দূর হবে।

দ্বিতীয়ত গালের ব্রণ দূর করার আরেকটি বিশেষ উপায় হল আমাদের পেট পরিষ্কার রাখা। আমাদের শাক-সবজি ও ভিটামিন জাতীয় খাদ্য খাওয়া বেশি প্রয়োজন এর ফলে পেট পরিষ্কার থাকবে ফলে মুখে কখনো ব্রণ উঠবে না।

তৃতীয়ত পর্যাপ্ত ঘুমিয়ে আমরা ব্রণ দূর করতে পারি পর্যাপ্ত ঘুমানোর ফলে আনন্দের গালে ব্রণ উঠে না বললেই চলে। আবার সান্স প্রটেকশন ব্যবহার করে যেমন ছাতা বা স্কার্ফ অথবা সানস্ক্রিন লাগিয়েও আমরা গালে ব্রণ ওঠা প্রতিরোধ করতে পারি এর ফলে গালের ব্রণ দূর হবে।

চতুর্থ আমরা মুখ পরিষ্কার রেখেও গালের ব্রণ দূর করতে পারি। গরমের দিন দিনে পাঁচ হতে ছয় বার ঠান্ডা পানি দিয়ে ভালো করে মুখ ধুয়ে আমরা গালে ব্রণ দূর করতে পারি আবার শীতে হালকা গরম পানি দিয়ে মুখ পরিষ্কারভাবে ধুয়ে গালের ব্রণ দূর করতে পারি।

আরেকটি বিশেষ উপায়ে আমরা গালের ব্রণ দূর করতে পারি। তা হল তৈলাক্ত জাতীয় খাবার পরিহার করে আমরা যদি তৈলাক্ত জাতীয় খাবার পরিহার করি তাহলে ব্রণ খুব সহজেই দূর হবে।

৭ দিনে ব্রণ দূর করার উপায়

৭ দিনের মধ্যে  ব্রণ দূর করার উপায় হল প্রথমে আপনাকে তেল জাতীয় খাবার একেবারেই বন্ধ করে দিতে হবে। দ্বিতীয়তঃ মুলতানি মাটি ও নিম পাতার শুকিয়ে পাউডার বানিয়ে সেটি একটি মিশ্রণ তৈরি করতে হবে এবং যে জায়গায় ব্রণ হয়েছে সেখানে প্রতিদিন দুবার লাগাতে হবে। এরপর শুকিয়ে যাওয়ার পর এটি ধুয়ে ফেলতে হবে। এর ফলে সাত দিনের মধ্যে ব্রণ দূর হবে।

তৃতীয়ত আপনাকে প্রতিদিন একটি করে ডাবের পানি খেতে হবে যা আপনার পেট ও শরীর ঠান্ডা রাখবে এর ফলে আর মুখে ব্রণ উঠবে না এবং সাত দিনের মধ্যে ব্রণ দূর হবে। চতুর্থ উপায় হল এবোট ফেসলিন জেল এটি ব্যবহারের মাধ্যমে সাত দিনের মধ্যে ব্রণ দূর হয়। তবে এই জেল ব্যবহারের পূর্বে অবশ্যই আপনার ত্বক বিশেষজ্ঞের কাছে পরামর্শ নেবেন।


তৈলাক্ত ত্বকের ব্রণ দূর করার উপায়

তৈলাক্ত ত্বকের জন্য ব্রণ একটি খুব ভয়ংকর সমস্যা। তৈলাক্ত ত্বকের জন্য এমনিতেই আমাদের  একটু বেশি যত্নের প্রয়োজন। একটি নির্দিষ্ট পরিমাণে তেল আমাদের ত্বকের জন্য জরুরী যা আমাদের ত্বককে সুন্দর ও তারুণ্য ধরে রাখতে সাহায্য করে।

ত্বক শুষ্ক হতে রক্ষা করে। তেল বলি রেখা ও মুখের ত্বকের কোন পরিবর্তন হওয়া থেকে রক্ষা করে। তবে তৈলাক্ত ত্বকের অসুবিধাও কম না। এসব তকে খুব সহজেই ধুলো বালি আটকে যায়। এর ফলে ব্রণ হওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যায়।

তৈলাক্ত ত্বকের ব্রণ দূর করার জন্য একটি ঘরোয়া উপায় হল দারুচিনি ও লেবুর রসের একটি মিশ্রণ তৈরি করে প্রতিদিন ঘুমানো যাওয়ার আগে মুখে লাগিয়ে রাখতে পারেন।

এটা লাগিয়ে সারা রাতও রাখতে পারেন। এর ফলে তৈলাক্ত ত্বকের ব্রণ খুব সহজেই দূর হবে। টুথপেস্ট তৈলাক্ত ত্বকের ব্রণের জন্য খুব ভালো একটি উপাদান। ব্রণ আক্রান্ত স্থানে লাগিয়ে রাখুন দুই থেকে তিন দিনের মধ্যে আপনার ব্রণ শুকিয়ে যাবে।

লেবু দিয়ে ব্রণ দূর করার উপায়

লেবু একটি খুবই কার্যকরী ও বিশেষ উপাদান ব্রণ দূর করার। এটি যেকোনো ধরনের ত্বকের জন্য খুব উপকারী। লেবুর রস ও মধু রাতে ঘুমাতে যাওয়ার পূর্বে মুখে লাগিয়ে রাখলে ব্রণ দূর হবে।

আবার দুটি পাতি লেবুর রস চেপে বের করুন এর সাথে দু চা চামচ পানি দিয়ে একটি মিশ্রণ তৈরি করুন। এটি দিনে চার হতে পাঁচ বার তুলো দিয়ে মুখে ব্রণের আক্রান্ত স্থানে লাগাতে থাকুন এর ফলে খুব তাড়াতাড়ি ব্রণ দূর হবে।

মুখের ব্রণ দূর করার ঔষধ

মুখে ব্রণ দূর করার অনেক ওষুধই অনেকেই সাজেস্ট করে। কিছু কমন ঔষধের নাম যা আমরা সবাই জানি যা খাওয়ার ফলে মুখের ব্রণ খুব সহজেই দূর হয় তা হলো ডক্সিক্যাপ এটি  সেবনের ফলে ব্রণের জীবাণুকে ধ্বংস হয়। এটি সকালে একটা রাতে একটা টানা দুই মাস খেতে হবে। এর ফলে মুখের ব্রণ দূর হবে।

আরেকটি ঔষধ হলো বিলাস্টিন ২০ এটি কমপক্ষে এক হতে মাস একটি করে সেবন করতে হবে এর ফলে ব্রণ দূর হবে। এর এরপর জেলড্রিন যা দিনে দুটি করে সেবন করতে হবে। এটি একটি গ্যাসের ওষুধ। কারণ ডেক্সিক্যাপ খাওয়ার পর আমাদের গ্যাস সমস্যা হতে পারে এজন্য জেলড্রিন খেতে হবে।

এরপর এরোমাইসিন লোশন এটি যাদের ব্রণ খুব বড় হয়ে গেছে সেই স্থানে প্রতিদিন লাগাতে হবে। এভাবে দেড় মাস লাগালে ভিতর থেকে ব্রণ ওঠা বন্ধ হবে। উপরে যে বড় আকারে ব্রণ টা থাকে সেটা আস্তে আস্তে শুকিয়ে ছোট হয়ে যাবে। ফোনা একটি কার্যকরী ক্রিম ও ব্রণের দাগ দূর করার। মুখের ব্রণ দূর করার ঔষধ খেতে হলে প্রথমে আমাদের অবশ্যই একজন ত্বকের বিশেষজ্ঞের কাছে পরামর্শ নিতে হবে।

ব্রণের সিরাপ

ছাফী  সিরাপ এই সিরাপ হয়তো আপনারা অনেকেই চেনেন। এটি বহুল পরিচিত একটি ইউনানী কোম্পানি হামদাদ ল্যাবরোটারিজের একটি প্রোডাক্ট। ছাফী একটি ব্রণ দূর করার সিরাপ। এই সিরাপটি ব্রণ দূর করতে খুবই কার্যকারী একটি ভূমিকা পালন করে।

আরো কিছু কার্যকরী সিরাম আছে যেগুলো দ্রুত ব্রণ দূর করতে সাহায্য করে। অর্ডিনারি সিরাম দিনে দুবার সকালে ও রাতে মুখে ব্যবহার করা যাবে যা প্যাকেটের গায়ে সঠিকভাবে ব্যবহার করার পদ্ধতি লেখা আছে এর মাধ্যমে ব্রণ খুব দ্রুত দূর হয়।

উপসংহার

পরিশেষে বলা যায় যে, ব্রণ একটি অস্বস্তিকর সমস্যা সকল বয়সী মানুষের জন্য। আর ব্রণ ও ব্রণের দাগ দূর করতে হলে আমাদের খাদ্য অভ্যাস পরিবর্তন করতে হবে এবং মুখের ব্রণের উপর খুটো খুটি করা যাবে না।

স্বাস্থ্যকর খাবার খেতে হবে তেল ও চর্বি জাতীয় খাবার এড়িয়ে চলতে হবে। এবং প্রয়োজনে ত্বকের বিশেষজ্ঞর কাছে পরামর্শ নিতে হবে এর ফলে মুখের ব্রণ দূর হবে এবং তা কখনোই আর ফিরে আসবেনা।

আপনার আসলেই দেশি ব্লগর একজন মূল্যবান পাঠক। মুখের ব্রণ দ্রুত দূর করার ১০টি কার্যকরী সেরা উপায় এর আর্টিকেলটি সম্পন্ন পড়ার জন্য আপনাকে অসংখ ধন্যবাদ। এই আর্টিকেলটি পড়ে আপনার কেমন লেগেছে তা অবশ্যই আমাদের কমেন্ট বক্সে কমেন্ট করে জানাতে ভুলবেন না।

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

কোন মন্তব্য নেই
এই পোস্ট সম্পর্কে আপনার মন্তব্য জানান

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন - অন্যথায় আপনার মন্তব্য গ্রহণ করা হবে না।

comment url