আনারসের উপকারিতা: আনারসের এতগুন কি জানা ছিল আগে?

আনারসের এতগুন কি জানা ছিল আগে? অনেকের কাছে এটি প্রিয়, আবার অনেকে এটি খেতে চান না। তবে আনারসের উপকারিতা জানলে হয়তো তারা সিদ্ধান্ত বদলাতেও পারেন।

আচ্ছালামু আলাইকুম প্রিয় দর্শক - দেশি ব্লগর পক্ষ থেকে আপনাকে স্বাগতম। আজকে আমি আপনাদের মাঝে আনারসের উপকারিতা: আনারসের এতগুন কি জানা ছিল আগে? নিয়ে আলোচনা করব।

আনারসের উপকারিতা: আনারসের এতগুন কি জানা ছিল আগে? সম্পর্কে আরো জানতে গুগলে সার্চ করতে পারেন অথবা আমাদের ওয়েব সাইটে অন্যান্য পোস্টগুলো পড়তে পারেন। তো চলুন আমাদের আজকের মূল বিষয়বস্তুগুলো এক নজরে পেজ সূচিপত্রতে দেখে নেয়া যাকঃ

আনারসের কি গুণ জানা ছিলো কি আগে আপনাদের? চলুন জেনে নেই। আনারস একটি উপকারি ফল। আমরা অনেক মানুষ আনারসকে অনেক ভালোবাসি। তাই শতব্দীর পর শতাব্দী ধরে আনারসের অনেক জনপ্রিয় তা ধরে রাখছে। তাই আজকে কয়টা আনারসের গুণাবলী সর্ম্পকে জানেন আপনারা বলুন তো আনারস যে শুধু খেতেই ভালো আর সুস্বাদ তা কিন্তু নয়।

আনারসের উপকারিতা: আনারসের এতগুন কি জানা ছিল আগে

আনারস আমাদের দেহের রোগ প্রতিরোগ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে, তার সাথে হাজাম শক্তি ও  বাড়ায়, হাড় শক্ত করে, দেহ  জনিত সমস্যা দূর করতে সহতা করে, ঠাণ্ডা লাগা ও কাশি জন্য দারুন উপকারি হিসাবে কাজ করে। এমন কি অতিরিক্ত ওজন কমানের কাজে আনারসের সাহায্য প্রয়োজন অনেক বেশি। আনারস এখন বিভিন্ন দেশে চাষ করা হয।

আমেরিকা মহাদেশে জন্মালে এই সুমিষ্ট ফলটি যে বিশ্বজনীন হয়ে উঠলো, যদিও সঠিক জানা নেই এতো টুকু জানা যায় যে আমেরিকা আবিষ্কার করার পর ১৯৯৩ সালে ক্রিস্টোফার কলম্বাস কেরেন ইউরোল তাঁর মাতৃভূমি ইতালিতে সঙ্গে নিয়ে আনারসের বীজ রোপন করেন।
 

আনারস চাষ করার নিয়ম

মার্চ থেকে জুনের মধ্যে আনারসের চাষ করা হয়। ফল হিসেবে আনারসের জনপ্রিয়তা কম নেই। সেই সঙ্গে ঘড় বানানের কাজে আনারসের পাতা ব্যবহার করা হয়ে থাকে। আনারস দেহের পুষ্টিগুন শুধুমাত্র এর স্বাদ বা চেহারা উপর ডিফেন্ট করে না ,আনারস প্রচুর মৃষ্টি রয়েছে।

যেমন, ভিটামিন সি. এখনিত পুষ্টি, পটাশিয়াম কপার, ম্যাঙ্গানিজ, ক্যালসিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম, বিটা-ক্যারোটিন ,लाই থায়ামিন, ভিটামিন বি, ফোলেট, ফাইবার ব্রোমেলিন ইত্যাদি। কার্যকরি উপাদান তাদের বেশি বেশি আনারস খাওয়া খুবই দরকার। এটি আমাদের শরিলের  বাতের ব্যাথা অনেক উপকারি হিসেবে কাজ করে। আমাদের শরীরে যন্ত্রণা কষ্টের মধ্যে অতিবাহিত বাতের ব্যাথা কারণে প্রস্তুত, বাতের ব্যাথা মাংসপেশি হাঁটু, কনুহ এইসব অংশগুলি ফুলে যায়।

ফলে আমাদের শরিলের অনেক ধরনের সমস্যা দেখা দেয়। আনারসে এক ধরনের প্রোটিও লাইটিক উৎসেচক থাকে, যা ব্রোমেলিন নামে পরিচিত। ব্রোমেলিনই আমাদের শরীনের, বাতের ব্যথা সমস্যা দূর করার জন্য উপকারি।

রোগ প্রতিরোগ ক্ষমত বাড়ায় আনারস

একটি আনারস খেলে আমাদের শরীর দৈনিক ভিটামিন সি বা অ্যাসকরবিক অ্যাসিড চাহিদা ১৩০ শতাংশ পুরান করতে পারে আনারস। ভিটামিন সি এর সাথে আমাদের দেহের রক্ত কণিকার ক্ষমতা  বাড়াতেও অণুজীব প্রতিরোধ করতে সাহায্য করে। একই সঙ্গে অ্যান্টি অক্সিডেন্ট হিসাবে দেহে কাজ করে থাকে। এছাড়াও কোষের বৃদ্ধি করতে ও আমাদের দেহের ক্যান্সারের হার কমাতে অনেক ভালো কাজ করে থাকে আনারস। 

বাঁতের সমস্যা কমায় আনারসের উপকারিতা

আনারস আমাদের দেহের বিভিন্ন ধরনের বাতের ব্যাথা উপকারী হিসেবে কাজ করে। এই ধরনের ব্যাথাই যারা ভুকছেন আপনারা অনেকেই জানেন না,  আনারস আমাদের দেহের ভিতরের মাংস পেশীর ব্যাথা করে ফুলে যায় এটাই হচ্ছে বাতের ব্যাথা বলা হয়। আনারস খাইলে আপনার বাতের ব্যাথা থাকবে না, তাই আমাদের কে বেশি বেশি আনারস খাইতে হবে যাতে আমাদের দেহে বাতের ব্যাথা না হয়।

স্বাস্থ্য বজায় রাখতে আনারস অনেক ভালো উপকারীতা

আনারস খেলে আমাদের দেহের ভিতরে প্রচুর পরিমাণ কোলাজেন তৈরি হয়। আমাদের দেহের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে আনারস অনেক দারুন কাজ করে থাকে।

ক্যান্সার রোগ দূর করতে আনারসের উপকারিতা

আনারসে প্রচুর অ্যান্টি-অ্যাক্সিডেন্ট, ভিটামিন এ, বিটা-ক্যারোটিন, ব্রোমেলিন ও ম্যাঙ্গানিজ থাকে তাই মুখ, গলা স্তন ক্যান্সারের প্রতিরোধ করতে অনেক ভালো কাজ করবে আনারস।

রক্তচাপ স্বাভাবিক রাখতে আনারসের ভূমিকা

আমরা জানি আনারসে প্রচুর পরিমান পটাশিয়াম রক্ত সঞ্চালন ও রক্তনালীর স্থিতিস্থাপকতা বজায় রাখতে সাহয্য করে। আমাদের দেহের রক্ত নালীর প্রসারন করে, উচ্চ রক্তচাপের সম্ভাবনা বহুগুন কমে যায়। এছাড়া পটাশিয়াম রক্ত জমাট বাঁধতে দেয় না। রক্তনালীতে প্রতিবন্ধতার আশঙ্কা কমে যায়। ফলে আমাদের দেহের হৃদরোগ, স্ট্রোকের আশঙ্কা থাকে না।

আপনার আসলেই দেশি ব্লগর একজন মূল্যবান পাঠক। আনারসের উপকারিতা: আনারসের এতগুন কি জানা ছিল আগে? এর আর্টিকেলটি সম্পন্ন পড়ার জন্য আপনাকে অসংখ ধন্যবাদ। এই আর্টিকেলটি পড়ে আপনার কেমন লেগেছে তা অবশ্যই আমাদের কমেন্ট বক্সে কমেন্ট করে জানাতে ভুলবেন না।

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

কোন মন্তব্য নেই
এই পোস্ট সম্পর্কে আপনার মন্তব্য জানান

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন - অন্যথায় আপনার মন্তব্য গ্রহণ করা হবে না।

comment url